» আগামীকাল যশোর জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন, জরিপে এগিয়ে শাহীন চাকলাদার

প্রকাশিত: ২৫. নভেম্বর. ২০১৯ | সোমবার

আগামী ২৭ নভেম্বর যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ঘিরে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হসিনার মনোযোগ আকর্ষনে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন জেলার সভাপতি, সম্পাদক পদপ্রত্যাশীরা। যার কারন হিসেবে পদপ্রত্যাশীরা এ সব নেতারা বলছেন নেত্রীর সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত। ২৭ তারিখ সকালে নেত্রী যা ঘোষনা দিবেন তাই মেনে নিয়েই যশোর জেলা আওয়ামীলীগের নতুন কমিটি চুড়ান্ত হবে। আর সেদিনই চুড়ান্ত হবে কাউন্সিলরদের ভোটে না সরাসরি সিলেকশনে নেতা নির্বাচন করা হবে। যদিও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কেন্দ্রীয় নেতা বলেছেন ইতমধ্যে নেত্রী ঠিক করে ফেলেছেন কারা আসছেন যশোর জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে। যদিও গত ১৬ নভেম্বর যশোর শহর ও সদর আওয়ামী লীগের সম্মেলনে শাহীন চাকলাদার অনুসারীদের নিরঙ্কুশ বিজয় হয়েছে। আর যার কারনে ২৭ নভেম্বর সম্মেলন ঘিরে চাকলাদার বিরোধী রা মরিয়া হয়ে উঠেছে। এবারের সম্মেলনে কাউন্সিলরা বলছেন, যদি ভোটের মাধ্যমে নেতা নির্বাচন করা হয় তাহলে শাহিন চাকলাদারের কোন বিকল্প নেই, আর কাউন্সিলদের জরিপে সভাপতি পদে এগিয়ে আছেন বর্তমান সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন।

এছাড়া আলোচনায় আছে সাবেক এমপি খালেদুর রহমান টিটো ও যশোর ২ আসনের এমপি মেজর আবঃ নাসির উদ্দিনের নাম।  তবে সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে শাহিন চাকলাদারকে নিয়ে। আলোচনায় আছেন সাবেক এমপি মনিরুল ইসলামও। এদিকে শাহীন চাকলাদারকে ঠেকাতে মরিয়া এমপি কাজী নাবিল আহমেদের অনুসারীরা। সাধারণ সম্পাদক পদ পেতে তারা জোর তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন। চলছে নানা সমীকরণ। এই দৌড়ে আছেন যুবলীগের সভাপতি মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধূরী।

এর আগে ২০১৫ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি যশোর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে শহিদুল ইসলাম মিলনকে সভাপতি ও শাহীন চাকলাদারকে সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করা হয়। ২০১৬ সালের ২০ মার্চ জেলা আওয়ামী লীগের ৮৬ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়।
সম্মেলন উপলক্ষে শাহীন চাকলাদার বলেন, ‘উৎসবমুখর পরিবেশে সম্মেলন সম্পন্ন করতে প্রায় সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়ে গছে। তিনি বলেন আমি আশা করি সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে সম্মেলন হবে বলে। তবে নেতৃত্ব নির্বাচনে নেত্রীর সিদ্ধান্তই মেনে নেব।

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ৫১২ বার

Share Button